1. bd35be9017d4c9453cd35cbbf143797e : admi2017 :
  2. editor@ajkergopalganj.com : Ajker Gopalganj : Ajker Gopalganj
মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৩৩ অপরাহ্ন

গোপালগঞ্জে গৃহহীনদের জন্য ৭৮৭টি ঘর প্রস্তুত

মনোজ সাহা
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১৬১ বার পঠিত

মুজিববর্ষে গোপালগঞ্জে গৃহহীন ও ভূমিহীনদের জন্য ৭৮৭টি ঘর প্রস্তুত করা হয়েছে। আগামী শনিবার ২৩ জানুয়ারী প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে এসব ঘর বিতরণের উদ্বোধন করবেন।
গোপালগঞ্জের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক কাজী শহিদুল ইসলাম আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে প্রেসব্রিফিং করে সাংবাদিকদের এ কথা জানিয়েছেন। তিনি আরো জানান, ক্ষুধা দারিদ্রমুক্ত সোনারবাংলা বিনির্মাণে মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে আশ্রায়ন প্রকল্প-২ এর আওতায় ‘ বাংলাদেশে একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না’ প্রধানমন্ত্রীর এ নির্দেশনা বাস্তবায়নের জন্য গোপালগঞ্জে গৃহহীন ও ভূমিহীনদের জন্য ৭৮৭টি ঘর প্রস্তুত করা হয়েছে।
তিনি বলেন, ইতিমধ্যে উপকারভোগীদের নির্বাচন করা হয়েছে। পরিবার প্রতি ২ শতাংশ খাস জমি বন্দোবস্ত দিয়ে কবুলিয়ত সম্পন্ন করে দেয়া হয়েছে। আগামী শনিবার প্রধানমন্ত্রী গোপালগঞ্জের ৫ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের সাথে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে এসব ঘর বিতরণের উদ্বোধন করবেন। আমরা ইতিমধ্যে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নেতৃত্বে সংশ্লিষ্ট উপজেলা প্রশাসন এসব ঘর বাস্তবায় করেছে বলে ওই কর্মকর্তা জানান।
এ সময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোসাম্মৎ শাম্মি আক্তার, মোঃ উসমান আলী, মোঃ ইকবাল হেসেন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রাশেদুর রহমান, এনডিসি মিলন সাহা সহ আরো অনেকে উপস্থিত ছিলেন।
গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রাশেদুর রহমান জানান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রায়ণ প্রকল্প-২ এর আওতায় ২ শতাংশ খাস জমির ওপর ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা ব্যয়ে ২ কক্ষ বিশিষ্ট ওয়াল সেট পাকা ঘরের নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। প্রতিটি ঘরের সাথেই ওয়াশ রুম, রান্নাঘর ও রারান্দা রয়েছে। ইতিমধ্যে উপকারভোগীদের খাস জমি বন্দোবস্ত দেয়া হয়েছে। শনিবার প্রধানমন্ত্রী তাদের কাছে ঘর হস্তান্তর করবেন।
উপকারভোগী গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার মানিকদহ গ্রামের সাদেক বিশ্বাস (৬০) বলেন, ‘আমি ২ বার নির্বাচিত সাবেক ইউপি সদস্য। মামলায় পড়ে আমার বসতবাড়ি ও জমি-জমা চলে গেছে। আমি এখন ভূমিহীন। প্রধানমন্ত্রী আমাকে ২ শতাংশ জায়গা দিয়েছেন। এখন ঘর দিচ্ছেন। এতে আমার নতুন ঠিকানা হবে। সবাইকে নিয়ে ঘরে মাথা গোঁজার ঠাঁই পাব। এজন্য বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রীর জন্য আমি নামাজ পড়ে দোয়া-মোনাজাত করছি। বঙ্গবন্ধুর রুহের মাগফিরাত কামনা করছি। আল্লাহ যেন প্রধানমন্ত্রীকে অনেক দিন বাঁচিয়ে রাখেন।’
মানিকদহ গ্রামের আঞ্জু বেগম (৩৫) বলেন, ‘আমাদের জায়গা নেই ঘরও নেই। স্বামী-সন্তান নিয়ে অনেক কষ্টে থাকতাম। প্রধানমন্ত্রী আমাদের জায়গা ও পাকা ঘর দিয়েছেন। এখানে সবাইকে নিয়ে সুখে শান্তিতে থাকতে পারবো। এ জন্য প্রধানমন্ত্রীর সুস্বাস্থ্য, সাফল্য ও দীর্ঘায়ূ কামনা করছি।’
ঘর নির্মাণ কাজের তত্ত¡বধায়ক ইমরুল খান বলেন, ঘরের মূল কাজ শেষ হয়েছে। এখন আমরা ফিনিশিং এর কাজ করছি। প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের আগেই ঘরগুলোর সব কাজ শেষ হবে। #

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
আজকের গোপালগঞ্জ বিল্ড ফর নেশনের একটি উদ্যোগ
Theme Developed BY ThemesBazar.Com