1. bd35be9017d4c9453cd35cbbf143797e : admi2017 :
  2. editor@ajkergopalganj.com : Ajker Gopalganj : Ajker Gopalganj
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১২:০৬ পূর্বাহ্ন

চান্দা বিলের ২ লাখ মানুষের স্বপ্নের জলিরপাড় সেতুর উদ্বোধন

শেখ জাবেরুল ইসলাম(বাঁধন)
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৫০৩ বার পঠিত

আজকের গোপালগঞ্জ প্রতিবেদক
গোপালগঞ্জে পশ্চাদপদ চান্দাবিলের ২ লাখ মানুষের স্বপ্নের জলিরপাড় সেতু উদ্বোধন করা হয়েছে। এ সেতু মুকসুদপুর উপজেলার নিন্ম জলাভূমি বেষ্টিত চান্দাবিলের ৭টি ইউনিয়নের সাথে গোপালগঞ্জ, মাদারীপুর, ফরিদপুর, বরিশাল ও ঢাকার যোগাযোগ স্থাপন করেছে। এতে এ অঞ্চলের উৎপাদিত কৃষিপন্য, মৎস্য সম্পদ পরিবহন ও বাজারজাত করে কৃষক লাভবান হচ্ছেন। ব্যবসা বানিজ্য সম্প্রসারিত হচ্ছে। মানুষের আর্থ সামাজিক অবস্থার ব্যাপক উন্নতি ঘটছে।
এলজিইডির মুকসুদপুর উপজেলা প্রকৌশলী সজল কুমার দত্ত জানান, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) পক্ষ থেকে ৪ বছর আগে মধুমতি নদীর এমবিআর চ্যানেলের ওপর ৩০০.৩০ মিটার দীর্ঘ জলিরপাড় সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়। উপজেলা ও ইউনিয়ন সড়কে দীর্ঘ সেতু নির্মাণ (এলবিসি) প্রকল্পের আওতায় প্রায় ২৭ কোটি টাকা ব্যায়ে গত বছরই পিসি গার্ডার এ সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হয়। তারপর থেকেই এ সেতু দিয়ে যানবাহন ও মানুষ চলাচল শুরু করে। করোনা মাহামারির কারণে এ সেতুর উদ্বোধন পিছিয়ে যায়।
মঙ্গলবার (১৬ ফেব্রুয়ারী) বিকেলে গোপালগঞ্জ-১ আসনের এমপি লেঃ কর্ণেল (অবঃ) মুহাম্মদ ফারুক খান এ সেতুর উদ্বোধন করেন।
ননীক্ষীর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শেখ হারুন বলেন, আমরা চান্দাবিলের মানুষ। বর্ষায় আমরা নৌকায় ও শুস্ক মৌসুমে হেঁটে চলাচল করতাম। আমাদের এলাকার ২ লাখ মানুষ যাতায়াতের ক্ষেত্রে চরম দুর্ভোগ পোহাতো। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় এসে চান্দাবিলের ৭ ইউনিয়নের ব্যাপক সড়ক নেটওয়ার্ক গড়ে তোলে। কিন্তু ব্রিজের অভাবে ২ লাখ মানুষ যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ছিলো। স্বপ্নের জলিরপাড় ব্রিজ নির্মাণের পরই চলাচলের জন্য ১ বছর আগে খুলে দেয়া হয়। তখন থেকেই এ অঞ্চলের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন হতে শুরু করে। ব্রিজের বদৌলতে কৃষক, ব্যবসায়ী সহ আমাদের বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের জীবন মানের উন্নতি হচ্ছে। আমাদের এমপি লেঃ কর্ণেল (অবঃ) মুহাম্মদ ফারুক খান আনুষ্ঠানিকভাবে এ ব্রিজের উদ্বোধন করে একটি মাইল ফলক স্থাপন করেছেন।
মুকসুদপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সাবেক সদস্য সমর রায় চৌধূরী ওরফে মিন্টু রায় চৌধূরী বলেন, আমরা পশ্চাদপদ চান্দাবিলের মানুষ জলিপাড়ে ব্রিজ নির্মাণের জন্য অনেক আগে থেকেই দাবি করে আসছিলাম। আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর স্থানীয় সংসদ সদস্য লেঃ কর্ণেল (অবঃ) মুহাম্মদ ফারুক খানের প্রচেষ্টায় এ ব্রিজ নির্মিত হয়েছে। এতে আমাদের বহুবছরের লালিত স্বপ্ন বাস্তবায়িত হয়েছে।
জলিরপাড় বাজারের ব্যাবসায়ী গনেশ চন্দ্র সাহা (৪০) বলেন, আমাদের এলাকায় যোগাযোগ ব্যাবস্থা ভাল ছিলো না। ব্রিজ হওয়ার পর যোগাযোগ ব্যাবস্থার আমূল পরিবর্তন হয়েছে। এখন আমরা সহজেই এখান থেকে গোপালগঞ্জ, মাদারীপুর, ফরিদপুর, বরিশাল ও ঢাকা যেতে পারছি। এ অঞ্চলের উৎপাদিত কৃষি পন্য ও মাছ সহজে ঢাকা পাঠানো যাচ্ছে। কৃষক ফসলের ন্যায্যমূল্য পাচ্ছেন। এলাকার ব্যবসা বানিজ্যের প্রসার ঘটছে। ব্যবসা করে আমরা ভাল আছি।
গোপালগঞ্জ এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী এহসানুল হক বলেন,গোপালঞ্জের চান্দাবিলের সাথে সারাদেশের যোগাযোগ স্থাপন করেছে জলিরপাড় সেতু। ফলে চান্দাবিলের ২ লাখ মানুষ সরাসরি উপকৃত হচ্ছেন। সেতুর বদৌলতে এ অঞ্চলের মানুষের আর্থসমাজিক অবস্থার ব্যাপক পরিবর্তন সাধিত হচ্ছে।
গোপালগঞ্জ-১ আসনের এমপি লেঃ কর্ণেল (অবঃ) মুহাম্মদ ফারুক খান বলেন, জলিরপাড় সেতু মুকসুদপুর উপজেলার পশ্চাদপদ বিস্তৃর্ণ এলাকার যোগাযোগের ক্ষেত্রে নব দিগন্তের দ্বার উম্মোচন করেছে।এর মধ্যে দিয়ে এ অঞ্চলের মানুষের যোগাযোগ, পন্য পরিবহন,ব্যবসা-বানিজ্য ও যাতায়াত খুবই সহজ হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
আজকের গোপালগঞ্জ বিল্ড ফর নেশনের একটি উদ্যোগ
Theme Developed BY ThemesBazar.Com