1. bd35be9017d4c9453cd35cbbf143797e : admi2017 :
  2. editor@ajkergopalganj.com : Ajker Gopalganj : Ajker Gopalganj
শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০৬:৩৫ অপরাহ্ন

টুঙ্গিপাড়ায় স্কুলছাত্রী ধর্ষণকারীদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন

শেখ জাবেরুল ইসলাম(বাঁধন)
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২২ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ১২৭ বার পঠিত

আজকের গোপালগঞ্জ প্রতিবেদক

গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় নবম শ্রেণীর স্কুলছাত্রীর ধর্ষণকারীদের শাস্তির দাবিতে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের পক্ষ থেকে মানববন্ধন করা হয়েছে।

সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১০ টা থেকে  ১১ টা পর্যন্ত টুঙ্গিপাড়া জি.টি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে  এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। মানববন্ধনে অংশগ্রহনকারীরা ধর্ষণ বিরোধী বিভিন্ন ব্যানার, ফেস্টুন ও প্লেকার্ড প্রদর্শন করে আসামিদের দ্রæত গ্রেফতার ও আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তির দাবি জানান।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ বাবুল শেখ ও নব নির্বাচিত মেয়র শেখ তোজাম্মেল হক টুটুল ৪৮ ঘন্টার মধ্যে আসামীদের বিচারের আওতায় আনার আশ্বাস দিলে মানববন্ধনকারীরা মানবন্ধন কর্মসূচী প্রত্যাহার করে নেন।

গত ২০ ফেব্রুয়ারী ওই ছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে ৩ জনকে আসামী করে  টুঙ্গিপাড়া থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দ্বায়ের করেন। মামলার আসামীরা হলো টুঙ্গিপাড়া উপজেলার পাটগাতী ইউনিয়নের  গওহরডাঙ্গা গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে  মিতুল হোসেন (২৩), টুঙ্গিপাড়া গ্রামের  আনোয়ার উদ্দিন খানের ছেলে রসুল খান (২৫), উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি শেখ শুকুর আহম্মেদের ছেলে রাজিব শেখ (২২)।

মামলা বিবরণে জানাগেছে, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভালবাসা দিবসে বিকাল সাড়ে ৪ টায় প্রতিদিনের মতো পাটগাতী গ্রামের সঞ্চরণ কোচিং সেন্টারে মেয়েটি পড়া শেষ করে বাড়িতে ফিরছিলো।  পথিমধ্যে ৩  বখাটে যুবক  ওই ছাত্রীর পথ রোধ করে জোর পূর্বক গোপন স্থানে নিয়ে চেতনা নাশক স্প্রে করে মেয়েটির সাথে অসামাজিক কর্মকান্ডে লিপ্ত হতে জবরদস্তি করে। এরপর রাজি না হলে তারা মেয়েটির মাথায় আঘাত করে। এক পর্যায়ে মেয়েটি অজ্ঞান হয়ে পড়লে তাকে ওই ৩ যুবক গণধর্ষণ করে। পরে রাত সাড়ে ৮ টার দিকে অচেতন অবস্থায় ওই ছাত্রীকে বখাটেরা বাড়ির সামনে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে পরিবারের লোকজন  টুঙ্গিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। সেখানে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে রাত ১০ টার দিকে চিকিৎসকরা তাকে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে রেফার করেন। সেখানেও তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে পরদিন ১৫ ফেব্রুয়ারি তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায় মেয়েটির পরিবারের লোকজন।

ধর্ষনের শিকার স্কুলছাত্রীর চাচা বলেন, ধর্ষণের পর দুই দিন মেয়েটি অজ্ঞান ছিলো। দু’ দিন পর জ্ঞান ফিরে আসার পর তার কাছ থেকে ধর্ষণের বিষয় জেনেছি। কিন্তু তার শারীরিক অবস্থা আরো খারাপ হয়ে পড়ে। তাই তার চিকিৎসা নিয়েই আমরা ব্যস্ত ছিলাম। এ কারণে মামলা করতে বিলম্ব হয়েছে। কিন্তু মামলার পরও আসামীদের গ্রেফতার করা হয়নি। আমরা আসামীদের দ্রুত গ্রেফতার করে কঠোর শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

টুঙ্গিপাড়া থানার ওসি এএফএম নাসিম বলেন, মামলা দায়েরের পর আমরা আসামী গ্রেফতারে তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছি। আশা করছি দ্রুতই আসামীদের আমরা গ্রেফতার করতে সক্ষম হবো।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
আজকের গোপালগঞ্জ বিল্ড ফর নেশনের একটি উদ্যোগ
Theme Developed BY ThemesBazar.Com