1. bd35be9017d4c9453cd35cbbf143797e : admi2017 :
  2. editor@ajkergopalganj.com : Ajker Gopalganj : Ajker Gopalganj
বুধবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:১১ অপরাহ্ন

অবৈধ পথে ইতালি যাত্রার পথে হিটস্ট্রোকে গোপালগঞ্জের ২ যুবকের মৃত্যু

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই, ২০২১
  • ৭০৯ বার পঠিত

আজকের গোপালগঞ্জ প্রতিবেদক

অবৈধভাবে ইতালি যাওয়ার পথে ভূমধ্যসাগরে হিটস্ট্রোকে আফজাল মৃধা ও সজিব মুন্সি নামে ২ যুবকের মৃত্যু হয়েছে। লিবিয়া পুলিশ আফজালের লাশ উদ্ধার করে ত্রিপলির একটি হাসপাতালের মর্গে রেখেছে বলে নিহতের পারিবারের সদস্যরা জানতে পেরেছেন। হিটস্ট্রোকের শিকার আফজাল মৃধা গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর উপজেলার মোচনা ইউনিয়নের ধোপাদী গ্রামের কৃষক একরাম মৃধার ছেলে। সজিব মুন্সি একই উপজেলার রাগদী ইউনিয়নের ফজলু মুন্সির ছেলে।

এ ঘটনায় সজিব ও আফজালের গ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। পরিবার ২টিতে চলছে শোকের মাতম। এ ঘটনায় জড়িত দালাল ও তাদের সহযোগীদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবি করেছেন স্বজনরা।

আফজালের ভাই আজিজুল মৃধা বলেন, মুকসুদপুর উপজেলার বড়দিয়া গ্রামের মানবপাচার চক্রের সদস্য আক্কাছ ফকিরের ছেলে ইতালী প্রবাসী ইলিয়াস ফকির ও তার ভাই দুলাল ফকির ইতালী নেয়ার স্বপ্ন দেখিয়ে আমাদের কাছ থেকে দু’দফায় প্রায় ৬ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়। গত ২০ রমজান ইলিয়াসের ভাই দালাল চক্রের সদস্য দুলাল ফকিরের সহযোগীতায় লিবিয়ায় যায় আফজাল। সেখানে কিছু দিন আফজাল অবস্থান করে। পরে নৌকা যোগে ইতালি যাওয়ার পথে লিবিয়া পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। ৩২ দিন জেল খেটে বের হন আফজাল। এরপর সে ফের ওই দালাল চক্রের খপ্পরে পড়ে। ১৯ জুলাই লিবিয়া থেকে ইঞ্জিনচালিত নৌকায় দালালরা তাকে ইতালীর উদ্দেশ্যে ভূমধ্য সাগর পাড়ি দিতে বাধ্য করে। মাঝপথে ট্রলারটি নষ্ট হলে প্রচন্ড রোদে হিটস্ট্রোকে মারা যায় আফজাল মৃধাসহ আরো ৫ জন। লিবিয়া পুলিশ আফজালের লাশ উদ্ধার করে ত্রিপলির একটি হাসপাতালের মর্গে রেখেছে বলে জানতে পেরেছি।

নিহত আফজালের বাবা একরাম মৃধা ও মা মিনারা বেগম বলেন, আমরা বুকের ধন হারিয়েছি। এভাবে যেন আর কোন মা-বাবার কোল খালি না হয়। দালল চক্রের বিরুদ্ধে সরকারকে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানাচ্ছি।

তারা বলেন, মানব পাচারের নামে দালালরা ব্যবসা করে। জোর করে দাললরা যুবকদের নৌকাতুলে দেয় বা জিম্মি করে হত্যা করে। এমনকি মুক্তিপনও দাবি করে। তারা ছেলের লাশ দেশে ফিরিয়ে এনে তাদের কাছে হস্তান্তরের জন্য সরকারের দাবি জানিয়েছেন।

তপারকান্দি গ্রামের সজিব মুন্সির শোকার্ত মা শাহানা বেগম বলেন, আমরা ছেলের সাথে গত ১৮ জুলাই শেষ কথা হয়েছে। তারপর আর কথা হয়নি। দালালরা তাকে জোর করে নৌকায় তুলে দিয়ে হত্যা করেছে। তাকে ইতালি পৌঁছে দিতে রাজৈর উপজেলার সত্যবর্তী গ্রামের দালাল শাহিন সরদার আমর কাছ থেকে ১১ লক্ষ টাকা নিয়েছে। এখন ছেলেকে হারিয়ে আমরা নিঃস্ব হয়ে পড়েছি। দালালদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে আমি সরকারের কাছে দাবি জানাচ্ছি।

দালাল চক্রের সদস্য ইলিয়াস ফকির, দুলাল ফকির ও শাহিদ সরদার ইতালি এবং লিবিয়ায় থাকেন এ কারণে তাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

মুকসুদপুর থানার ওসি মোঃ আবু বকর মিয়া বলেন, বিষয়টি আমরা মিডিয়ার মাধ্যমে জানতে পেরেছি। এ ব্যাপারে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ দিলে দালাল চক্রের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
আজকের গোপালগঞ্জ বিল্ড ফর নেশনের একটি উদ্যোগ
Theme Developed BY ThemesBazar.Com