1. bd35be9017d4c9453cd35cbbf143797e : admi2017 :
  2. editor@ajkergopalganj.com : Ajker Gopalganj : Ajker Gopalganj
শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:২৫ পূর্বাহ্ন

বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অবিচল ছিলেন কাজী আব্দুর রশীদ

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১৪ আগস্ট, ২০২১
  • ১৯ বার পঠিত

সৎ, ত্যাগী,জীবন সংগ্রামী ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ট সহচর এ্যাডভোকেট কাজী আব্দুর রশীদের ৭ম মৃত্যু বার্ষিকী আজ শনিবার (১৪ আগস্ট)

তিনি গোপালগঞ্জ জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও গোপালগঞ্জ ১ আসন থেকে ৩ বার নির্বাচিত সাবেক সংসদ সদস্য। এ্যাডভোকেট কাজী আব্দুর রশীদ ১৯৩৩ সালে গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর উপজেলার গোহালা ইউনিয়নের মুনীরকান্দি গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জম্মগ্রহন করেন। তার পিতার নাম কাজী দারাজ উদ্দীন।

কাজী আব্দুর রশীদ ১৯৪৯ সালে মুকসুদপুরের গোহালা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মেট্রিকুলেশন পাশ করেন। এরপর তিনি ফরিদপুর রাজেন্দ্র কলেজ থেকে আইএ ও বিএ পাশ করেন। পরবর্তীতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে এমএ (এলএল বি) পাশ করেন। তিনি গোহালা উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষকতার মধ্য দিয়ে কর্মজীবনে প্রবেশ করেন। সেখানে তিনি প্রধান শিক্ষকের দায়িত্বও পালন করেন। রাজনীতির পাশাপাশি শিক্ষকতা ছেড়ে শুরু করেন ওকালতি। প্রাজ্ঞ আইনজীবী হিসেবে তিনি জেলার মধ্যে শীর্ষ অবস্থান করে নেন । তিনি গোপালগঞ্জ আইনজীবী সমিতির এক নম্বর সদস্য ছিলেন। এছাড়া তিনি অসংখ্য বার জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ছিলেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাত ধরেই কাজী আব্দুর রশীদ আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে যুক্ত হন। ১৯৭০ সালে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে এমপি নির্বাচিত হন। ১৯৭১ সালে গণপরিষদ সদস্য হিসেবে বঙ্গবন্ধুর আহবানে সাড়া দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন। মুক্তযুদ্ধকালীন সময় তার নেতৃত্বে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধাদের ভারত থেকে বিভিন্ন সেক্টর ও সাবসেক্টরে পাঠানো হতো । পাকবাহিনী ও রাজাকার ’৭১ সালে তার গোপালগঞ্জ শহরের উদয়নর রোডেরে বাড়ি-ঘর অগ্নি সংযোগ করে পুড়িয়ে দেয়।

১৯৭২ সালে তিনি স্বাধীন দেশের নতুন সংবিধান রচনায় ভুমিকা রাখেন। ওই সংবিধানে বঙ্গবন্ধুর সাথে তার স্বাক্ষর রয়েছে। স্বৈরাচার এরশাদ বিরোধী আন্দোলনেও তিনি রাজপথে থেকে নেতৃত্ব দেন।

এছাড়া তিনি ১৯৭৯ সালে ও ১৯৯১ সালে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হিসেবে গোপালগঞ্জ-১ আসন (মুকসুদপুর ও কাশিয়ানী) থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। বিরোধী দলের এমপি হিসেবে তিনি নির্বাচনী এলাকায় স্বাধ্যমত উন্নয়ন কাজ করেছেন। মানুষের পাশে সুখ দুঃখের সাথি ভাগি হয়েছেন।আওয়ামী লীগকে তৃনমূলে সংগঠিত করেছেন।

৭৫ এর ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর দলের দূর্দিনে আওয়ামী লীগকে সংগঠিত করতে ভূমিকা রাখেন তিনি। বিভিন্ন সময় তিনি দলের জেলা পর্যায়ের গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের একজন প্রভাব শালী সদস্য ছিলেন। এছাড়া তিনি কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদ সদস্যের দায়িত্ব পালন করেছেন। সৎ, ত্যাগী ও আজীবন সংগ্রামী এ নেতা ২০১৪ সালের ১৪ই আগস্ট ইন্তেকাল করেন ।

এ নেতার ৭ম মৃত্যু বার্ষিকীতে তাঁর স্মৃতির প্রতি জেলা আওয়ামীলী লীগ ও সহযোগি সংগঠন , জেলা আইনজীবী সমিতি, এ্যাডভোকেট কাজী আব্দুর রশীদ ফাউন্ডেশন, গোপালগঞ্জ সোস্যাল ওয়েলফেয়ার এ্যাসোসিয়েশন সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সমাজিক, সাংস্কৃতিক, শ্রমজীবী ও পেশাজীবী সংগঠনের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা জানানো হয়েছে।

এ ছাড়া কোরআন খানী, মিলাদ মাহফিল, দোয়া-মোনাজাত ও খাবার বিতরণের মধ্য দিয়ে এ্যাডভোকেট কাজী আব্দুর রশীদের ৭ম মৃত্যু বার্ষিকী পালন করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
আজকের গোপালগঞ্জ বিল্ড ফর নেশনের একটি উদ্যোগ
Theme Developed BY ThemesBazar.Com