1. bd35be9017d4c9453cd35cbbf143797e : admi2017 :
  2. editor@ajkergopalganj.com : Ajker Gopalganj : Ajker Gopalganj
মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:৫৫ অপরাহ্ন

শোক দিবসের খাদ্য উপকরণ আত্মসাৎ: ধরা খেলেন দু’ আ.লীগ নেতা

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৯ আগস্ট, ২০২১
  • ১১ বার পঠিত

আজকের গোপালগঞ্জ প্রতিবেদক
গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় শোক দিবসের খাদ্য উপকরণ চাল, ডাল, তেল ও আলু আত্মসাতের পর ধরা খেলেন কুশলী ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি এমদাদ মোল্লা ও সাধারণ সম্পাদক ইমরান লস্করের বিরুদ্ধে। বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে আত্মসাৎকৃত খাদ্য উপকরণ স্থানীয় এতিমখানায় দিয়ে আসেন ইমরান লস্কর।
৩নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা আসমত আলী অভিযোগ করে বলেন, টুঙ্গিপাড়ায় প্রতি বছরের ১৫ আগস্টে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল চট্ট্রগামের মেজবানের আয়োজন করেন। কিন্তু করোনা মহামারীর কারণে এ বছর উপজেলার ৫৪ টি ওয়ার্ডে পৃথকভাবে মেজবানের আয়োজন করেন। কুশলি ইউনিয়িনের ৩ নং ওয়ার্ডে মেজবানের জন্য ২৮ হাজার টাকা দেন শিক্ষা উপমন্ত্রী । সেই টাকার খাদ্য উপকরণ কিনে এক ডেক্সি খিচুড়ি ও মাংস রান্না করে কিছু লোককে খাওয়ানো হয়। বাকি সব খাদ্য উপকরণ আত্মসাৎ করে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি এমদাদ মোল্লা ও সাধারণ সম্পাদক ইমরান লস্কর।
৩ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা আনিস সহ একাধিক ব্যক্তি জানান, ১৫ আগস্টে মেজবানের জন্য কুশলি ইউনিয়নের অন্যান্য ওয়ার্ডে ১শ কেজির উপরে খিচুড়ি ও মাংস রান্না করে মানুষের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিয়েছে নেতারা। কিন্তু ৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সেক্রেটারি কিছু লোককে খাইয়ে বাকি মালামাল আত্মসাৎ করেছে। পরে এলাকায় এই নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা শুরু হলে ১৭ আগস্ট ৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি ইমরান লস্কর স্থানীয় এতিমখানায় আত্মসাৎকৃত খাদ্য উপকরণ দিয়ে আসেন।
এবিষয়ে জানতে ৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি এমদাদ মোল্লার মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ১৫ আগস্টে মেজবানের জন্য যখন টাকা দেওয়া হয় তখন আমি অনুপস্থিত ছিলাম। যখন রান্নাবান্না সম্পন্ন করা হয় তখন এলাকাবাসী কেউ খেতে আসেনি। পরে ইমরান লস্কর জ্যেষ্ঠ নেতাদের নির্দেশে এতিমখানায় সেই খাবার দিয়ে আসে।
১৫ আগস্টের খাদ্য উপকরণ আত্মসাতের বিষয়টি ভিত্তিহীন বলে জানিয়ে ৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ইমরান লস্কর বলেন, ১৫ আগস্টে লোকজন খাওয়ার পর থেকে যাওয়া খাদ্য উপকরণ সভাপতি এমদাদ মোল্লা আমাকে বাড়ি নিয়ে যেতে বলেন। কিন্তু মা ও আমি অসুস্থ থাকায় একদিন খাদ্য উপকরণ গুলো আমার বাড়িতে ছিলো। পরে ১৭ আগস্ট ৪২ কেজি চাল, ৫ কেজি তেল, ডাল, আলু এতিমখানায় দিয়ে এসেছি।
এবিষয়ে কুশলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বেলায়েত হোসেন সরদার মুঠোফোন বলেন, আপনি যে বিষয়ে জানতে চাচ্ছেন, সে বিষয়টি মিটমাট হয়ে গেছে। এই বলে তিনি কলটি কেটে দেন।

 

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
আজকের গোপালগঞ্জ বিল্ড ফর নেশনের একটি উদ্যোগ
Theme Developed BY ThemesBazar.Com